বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
মধুখালীতে অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী লোহাগড়ায় সংখ্যালঘুদের চলাচলের রাস্তা অবরুদ্ধ করে রেখেছে একদল ভূমি দস্যু  সন্ত্রাসী  লোহাগড়ায় পুলিশের তান্ডব প্রতিবাদে  এলাকাবাসীর বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন  বাগেরহাটের মংলায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ১৫ কেজি গাঁজাসহ এক নারী মাদক কারবারি আটক নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জে হিলফুল ফুজুল যুব সংঘের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রিক বিতরণ খুলনার রূপসায় সালাম জুট মিলে আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ১৬ টি ইউনিট , নড়াইলে ধান ক্ষেতে প্রতিক্ষণ বিমান!  রাউজান থানায় সড়ক দূর্ঘটনায় বাঁশখালীর ২ হাফেজ ইমামের মৃ*ত্যু বাগেরহাটে অসহায় হত দরিদ্র মানুষের হাতে ঈদ উপহার তুলে দিলেন জনতার এমপি শেখ সারহান নাসের তন্ময় গণমাধ্যমকর্মীদের সংগঠন বাংলাদেশ রিপোর্টার্স ইউনিটি’র উদ্যোগে ইফতার ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কেশবপুর প্রেমিকের  হাত ধরে স্ত্রীর উধাও থানায় অভিযোগ 

জি.এম.হিরোন (কেশবপুর যশোর)
  • আপলোডের সময় : শনিবার, ১ এপ্রিল, ২০২৩
যশোর কেশবপুরে স্বামীর বাড়ি থেকে নগদটাকাসহ ৬/৭ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে প্রেমিকের হাত ধরে স্ত্রীর পলায়ন করেছে। এ ব্যাপারে স্বামী বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।
কেশবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার শেকপুরা গ্রামের তছির শেখের পূত্র বিল্লাল হোসেন (২৮) এর সাথে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার যুগী পুকুর গ্রামের আজিবার সরদারের কন্যা নাজমা খাতুন (২৫) এর সাথে ২ মাস পূর্বে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক রেজিষ্ট্রিবিবাহ সম্পন্ন হয়। বিবাহের কয়েকদিন পরেই  নাজমা খাতুন তার পিতার বাড়িতে যাওয়ার জন্য উতালা হয়ে উঠে এবং বেশিরভাগ সময় পিতার বাড়িতে থাকে। নাজমা খাতুন তার স্বামীর গ্রামের বাড়িতে থাকতে অপারকতা প্রকাশ করলে বিল্লাল হোসেন হাসানপুর বাজারে একটি বাড়ি ভাড়া করে তাক নিয়ে বসবাস করতে থাকে। কিন্তু নাজমা খাতুন তার পূর্বের প্রেমিক ডুমুরিয়া উপজেলার উলা গ্রামের নুর ইসলামের পূত্র এসানুর রহমান শেখের সাথে ফোনালাপ করতে থাকে। স্বামী নিষেধ করলেও কোন কাজ হয় না। বিল্লাল হোসেন পেশায় একজন ইটভাটার সরদার। তিনি তার কর্মস্থল বরিশালে অবস্থানের সময় শুক্রবারে এলাকাবাসি সমজিদে নামাজ আদায় করার সূযোগে নাজমা খাতুন ও তার প্রেমিক এসানুর রহমান শেখ বিল্লাল হোসেনের বাসা থেকে ১টি র্স্মাট ফোন, ১টি ফ্রিজ, ১টি এলইডি মনিটর, খাট-সহ আসবাবপত্র, যাবতীয় স্বর্ণালংকার, সোনালী ব্যাংকের এটিএম কার্ড, নগদ ৪ লাখ টাকা সহ ৬/৭ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। এব্যাপারে বিল্লাল হোসেন কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..