বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সাতক্ষীরা কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের নেতা-কর্মীদের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা। চবিতে চলছে হল সিলগালা। নড়াইলে পুকুরে গোসল করতে গিয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীর মৃত্যু  নড়াইলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৭   সিংড়ায় মাসব্যাপী চলনবিল বৃক্ষরোপণ উৎসবে বিনামূল্যে গাছের চারা বিতরণ পুরাতন সাতক্ষীরায় জমিজমা বিরোধে ৪জনকে পিটিয়ে আহত কোটা সংস্কারের দাবিতে বঙ্গভবনের স্মারকলিপি দিলেন শিক্ষার্থীরা যারা না জেনে সমালোচনা করেন, তারা মানসিক রোগী: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশু গৃহকর্মীকে  নির্যাতনের ঘটনায় দম্পতি গ্রেফতার। সাভারে চুরির অপবাদ দিয়ে শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক দুই

ছাত্রলীগ কোটা ব্যবস্থার যৌক্তিক সমাধান করবে।সাদ্দাম 

নিজস্ব প্রতিবেদন
  • আপলোডের সময় : বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই, ২০২৪

কোটা নিয়ে শিক্ষার্থীদের সে আন্দোলন তৈরি হয়েছে সেই ইস্যুর যৌক্তিক, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও ইতিবাচক সমাধানের দাবি ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে উল্লেখ করে সাদ্ধাম হোসেন বলেছেন, ছাত্রলীগ কোটা ব্যবস্থার যৌক্তিক সমাধান করবে। যেই সমাধানটি কল্যাণকর ও টেকসই সেই ব্যবস্থাই করবে ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এই ঘোষণা দেন।

সাদ্দম হোসেন বলেন, সরকার পক্ষের আইনজীবীরাই তো লড়ছে। সরকার নিজেই তো বলছে, কোটা ইস্যুতে সরকার আন্তরিক। তাহলে কারা আন্দোলনের নামে টালবাহানা তৈরি করতে চায় প্রশ্ন তোলেন সাদ্দাম।

কোটা ইস্যুটি এখন আদালতের হাতে। আদালত ‘স্ট্যাটাস কো’ দেওয়ার পরে মোড়ে মোড়ে ব্লকেড করে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করা কোনো সঠিক প্রক্রিয়া হতে পারে না উল্লেখ করে সাদ্দাম হোসেন বলেন, খেলা যদি মিরপুরের মাঠে হয় তবে সিলেটের স্টেডিয়ামে গিয়ে লাভ আছে? কোটার বিষয়টি এখন আদালতের কোর্টে গেছে আর এরা (আন্দোলনকারীরা) শাহবাগে মোড়ে মোড়ে বসেছে। ব্লকেড ব্লকেড খেলা এটি কি কোনো প্রক্রিয়া?

কোটার জন্য জনদুর্ভোগ না বাড়িয়ে আইনসংগত পদ্ধতি মেনে সমাধান করা যায় উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, এটি বাস্তবায়নের সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়া রয়েছে। সেই প্রক্রিয়ায় তারা যাচ্ছেন না। বর্তমানে আদালতের স্থিতি আদেশ দেওয়ার পরেও যারা অবরোধ করছেন তারা প্রফেশনাল আন্দোলনকারী। কারণ, মূল আন্দোলনকারীরা আদালতের রায় মেনে নিয়েছে।

ছাত্র সমাবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি মাজহারুল কবির শয়ন কোটা আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের আবেগ নিয়ে আর খেলবেন না৷ এই মুহূর্তে অবরোধ বা জনদুর্ভোগের কোনো প্রয়োজনীয়তা নাই। এই অচলাবস্থা ও অবরোধ যেন শিক্ষার্থীরা তুলে ফেলে এবং ক্লাসে যেন ফিরে আসে সেই আহ্বান জানান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকত বলেন, একটি পক্ষ সাধারণ ছাত্রদের আবেগকে কাজে লাগিয়ে সেসব শিক্ষার্থীদেরকে ছাত্রলীগের বিপক্ষে দাঁড় করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। আদালত তো রায় দিয়েছে। আদালতের রায়ের পরে আর কোনো আন্দোলন থাকে না। যেটি থাকে সেটি হলো অপরাজনীতি।

এসময় তিনি আরো বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে একটি গোষ্ঠী যে আন্দোলন করছে সেটি কি বৈষম্যের বিরুদ্ধে অবস্থান না সরকারের বিরুদ্ধে? এসময় তাদের পেছনে আন্দোলনকারীদের পেছনে দাঁড়িয়ে স্লোগান না দেওয়ারও আহ্বান জানান তিনি।

ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন সংগঠনটির ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সভাপতি রিয়াজ মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সাগর আহমেদ শামীম, মহানগর দক্ষিণ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজিবুল ইসলাম বাপ্পি ও সাধারণ সম্পাদক সজল কুন্ডু। এছাড়াও সমাবেশে বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..