শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০২:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
পিপিএম (রাষ্ট্রপতি) পদক পেলেন খুলনার সন্তান পুলিশ পরিদর্শক মনিরুজ্জামান। লোহাগড়ায় সৎ মায়ের হাতে ৩ বছরের শিশু খুন রাষ্ট্রপতি পদক পেলেন সিলেট জেলার পুলিশ সুপার’’ রামপালে স্থানীয় সরকার দিবস উদযাপন  খুলনায় গোয়েন্দা পুলিশের হাতে আটক অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী নরসিংদীতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস – ২০২৪ পালিত। কক্সবাজারে পুলিশ সুপার’ ও র‍্যাব অধিনায়কসহ পুলিশ পদক পেলেন দশ কর্মকর্তা যথাযথ মর্যাদায় সরকারি সা’দত কলেজে পালিত হলো শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আমিরাতে বাংলাদেশ মিশনের মাতৃভাষা দিবস পালন ভাষা শহীদদের প্রতি খুলনা জেলা ও মহানগর যুবদলের শ্রদ্ধা নিবেদন 

সরকারি চাল অন্য কোম্পানীর বস্তায় ভরে বাজারজাত করার সময় বাবা ও ছেলে আটক 

সুদীপ সাহা, বাউফল প্রতিনিধি
  • আপলোডের সময় : শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০২৩
পটুয়াখালীর বাউফলে টেস্ট রিলিফ(টিআর) ও কাজের বিনিময়ের খাদ্য কর্মসূচীর  (কাবিখা) সরকারি চাল  অন্য একটি কোম্পানির  বস্তায় ভর্তি করে বাজারজাতকালে  মোতাহার উদ্দিন (৬০) ও তার ছেলে আউয়ালকে(৩০)  আটক করেছে স্থানীয়রা। পরে তাদেরকে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে অর্থদন্ড  করা হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,  বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে কালাইয়া বাজার গরুহাট সংলগ্ন নুরু মসজিদের সামনের একটি ব্যক্তি মালিকানাধীন গোডাউনের মধ্যে  মোতাহার  উদ্দিন ও তার ছেলে আউয়াল  টিআর ও কাবিখার সরকারী চাল নুরজাহান নামের একটি চাল কোম্পানীর বস্তায়   ভরে বাজারজাতের প্রস্তুতিকালে স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি তাদের আটক  করে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমিকে খবর দেন।
জানা গেছে,  বাপ ও ছেলে দীর্ঘ দিন  ধরে উপজেলার বিভিন্ন চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের কাছ থেকে টিআর ও কাবিখার সরকারি চাল কিনে বিভিন্ন কোম্পানির বস্তায় ভরে তা অধিক দরে বাজারজাত  করে আসছিল।
আটককৃতদের বাড়ি বগা ইউনিয়নের বানাজোরা গ্রামে।
এবিষয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার ভূমি বায়েজেদুর রহমান বলেন, আমরা খবর পেয়ে থানা কয়েক পুলিশসহ   ঘটনাস্থলে যাই এবং  টিআর ও কাবিখার চাল নুরজাহান নামক একটি কোম্পানীর বস্তায় ভরা অবস্থায় দেখতে পাই। অভিযুক্ত মোতাহার ও তার ছেলে আউয়ালের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী  অন্য কোম্পানীর বস্তায় ভরে চাল বাজারজাতের চেষ্টার অপরাধে  তাদেরকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করি এবং মুচলেকা  রেখে ছেড়ে দেই।
বাউফল উপজেলা খাদ্যনিয়ন্ত্রক কমল দে বলেন, টিআর ও কাবিখার চাল বিক্র করে সেই টাকা দিয়ে প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নের সুযোগ  রয়েছে। কিন্তু সেই চাল কোন কোম্পানির বস্তায় ভরে বাজারজাত করার সুযোগ নেই।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..