শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৫:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
সাতক্ষীরা কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের নেতা-কর্মীদের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা। চবিতে চলছে হল সিলগালা। নড়াইলে পুকুরে গোসল করতে গিয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীর মৃত্যু  নড়াইলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৭   সিংড়ায় মাসব্যাপী চলনবিল বৃক্ষরোপণ উৎসবে বিনামূল্যে গাছের চারা বিতরণ পুরাতন সাতক্ষীরায় জমিজমা বিরোধে ৪জনকে পিটিয়ে আহত কোটা সংস্কারের দাবিতে বঙ্গভবনের স্মারকলিপি দিলেন শিক্ষার্থীরা যারা না জেনে সমালোচনা করেন, তারা মানসিক রোগী: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশু গৃহকর্মীকে  নির্যাতনের ঘটনায় দম্পতি গ্রেফতার। সাভারে চুরির অপবাদ দিয়ে শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক দুই

কুমিল্লার কৃতি সন্তান ও বাংলাদেশের কৃতিমান গীতিকবি , উজ্জ্বল নক্ষত্রের না ফেরার দেশে

মোঃওমর ফারুক কুমিল্লা
  • আপলোডের সময় : রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি গীতিকবি, পরিচালক ও প্রযোজক গাজী মাজহারুল আনোয়ার আর নেই। রবিবার (৪ সেপ্টেম্বর) ভোর সাড়ে ৬টার দিকে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন গাজী মাজহারুল আনোয়ারের পুত্রবধূ শাহানা মির্জা।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, রবিবার সকালে রাজধানীর নিজ বাসায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পরে তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হয়।সেখানে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
গাজী মাজহারুল আনোয়ারের মৃত্যুর খবর শুনে তাৎক্ষণিকভাবে অনেক তারকা শিল্পীরা ছুটে আসেন। হাসপাতালে দেখা যায় অনন্ত জলিল, বর্ষা প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরুসহ অনেকেই। এছাড়াও ছুটে যান ঢাকার উত্তরের মেয়র আতিক রহমান তাহার ভক্তবৃন্ধ গাজী মাজহারুল আনোয়ারের এভাবে চলে যাওয়া কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না।

এই গায়ক গাজী মাজহারুল আনোয়ারের বেশকিছু গানে কণ্ঠ দিয়েছেন।

এদিকে, মেয়ে কণ্ঠশিল্পী দিঠি ও চাচা বিদেশ থেকে আসার পর পর গাজী মাজহারুল আনোয়ারের দাফনকার্য সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন বাবার ছেলে উপল। উপল বলছেন, ‘এখন আমরা আমার বোন ও চাচার জন্য অপেক্ষা করছি। ’

গাজী মাজহারুল আনোয়ারের মরদেহ হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে। বাড়িধারা পার্ক রোডের বাসায় শুরুতে তাকে নেওয়ার কথা থাকলে তা আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।

গাজী মাজহারুল আনোয়ারের জন্ম ২২ ফেব্রুয়ারি ১৯৪৩,কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলায় তালেস্বর মিয়া বাড়িতে। তিনি একাধারে চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক, রচয়িতা, গীতিকার ও সুরকার। স্বাধীনতা ও দেশপ্রেম নিয়ে তিনি অসংখ্য শ্রোতাপ্রিয় গান লিখেছেন। তিনি ২০০২ সালে বাংলাদেশের একুশে পদক এবং ২০২১ সালে স্বাধীনতা পুরস্কার লাভ করেন। ২০ হাজারের বেশি গান রচনা করেছেন তিনি। বিবিসি বাংলা তৈরীকৃত সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ২০টি বাংলা গানের তালিকায় রয়েছে তার লেখা তিনটি গান।

এ ছাড়া তার লেখা কালজয়ী গানগুলো হলো ‘জয় বাংলা, বাংলার জয়‘আছেন আমার মোক্তার আছেন আমার ব্যারিস্টার একতারা তুই দেশের কথা বল রে এবার বল’একবার যেতে দে না আমার ছোট্ট সোনার গাঁয় প্রভৃতি।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..