শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সাতক্ষীরা কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের নেতা-কর্মীদের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা। চবিতে চলছে হল সিলগালা। নড়াইলে পুকুরে গোসল করতে গিয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীর মৃত্যু  নড়াইলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৭   সিংড়ায় মাসব্যাপী চলনবিল বৃক্ষরোপণ উৎসবে বিনামূল্যে গাছের চারা বিতরণ পুরাতন সাতক্ষীরায় জমিজমা বিরোধে ৪জনকে পিটিয়ে আহত কোটা সংস্কারের দাবিতে বঙ্গভবনের স্মারকলিপি দিলেন শিক্ষার্থীরা যারা না জেনে সমালোচনা করেন, তারা মানসিক রোগী: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশু গৃহকর্মীকে  নির্যাতনের ঘটনায় দম্পতি গ্রেফতার। সাভারে চুরির অপবাদ দিয়ে শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক দুই

ময়মনসিংহের ট্রাকচাপায় নিহত মা সেই সদ্যোজাত শিশু দায়িত্ব নিলেন ডিসি

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি,
  • আপলোডের সময় : শনিবার, ১৬ জুলাই, ২০২২

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলায় এক অন্তঃসত্ত্বা নারী ট্রাকচাপায় মারা যাওয়ার আগে জন্ম দেওয়া শিশুর দায়িত্ব নিয়েছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. এনামুল হক।

শনিবার (১৬ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে নগরীর লাবিব হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই শিশুকে দেখতে গিয়ে ভরণপোষণের দায়িত্ব নেন তিনি।

জানা গেছে, আজ শনিবার দুপুরে জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) তার আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ও আড়াই বছরের কন্যা সন্তানকে নিয়ে আল্ট্রাসনোগ্রাম করার জন্য ত্রিশাল পৌর এলাকায় আসেন। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক পারাপারের সময় দ্রুতগামী মালবাহী একটি ট্রাক তাদের চাপা দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলেই জাহাঙ্গীর আলম (৩৫), তার স্ত্রী রত্না বেগম (২৬) ও তার আড়াই বছরের মেয়ে জান্নাত নিহত হয়।

সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলেন অন্তঃসত্ত্বা, পেট ফেটে বেরিয়ে এলো নবজাতক
এদিকে অন্তঃসত্ত্বা রত্না বেগমের পেটে থাকা নবজাতক শিশু ট্রাকচাপা খেয়ে রাস্তায় প্রসব হয়। এ সময় নবজাতক কন্যা শিশুটিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে চিকিৎসক নবজাতক বাচ্চাটিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে রেফার্ড করে। তবে অতিরিক্ত যানজটের কারণে নবজাতককে চুরখাই কমিউনিটি বেজড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে নগরীর চরপাড়া এলাকায় লাবিব হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শিশুটি বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন।

কমিউনিটি বেজড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ কামরুজ্জামান জানান, শিশুটির অবস্থা আমরা পর্যবেক্ষণ করেছি, সে ভালো আছে এবং শঙ্কাযুক্ত। যেহেতু মায়ের দুধ পাচ্ছেনা তাই ফর্মুলা দুধ খাওয়ানো হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, বাচ্চাটির ডান হাতে দুটি হাড় ভাঙা রয়েছে। এই জন্য তাকে আলাদাভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে আর কোনো সমস্যা নেই।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক বলেন, আজ রাতে হাসপাতালে শিশুটিকে দেখতে গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে শিশুটির চিকিৎসা খরচসহ ভবিষ্যতে যেন কোনো সমস্যা না হয়, সেজন্য তার নামে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করে দেবো বলেছি।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..