সোমবার, ০৮ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
মধুখালীতে অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী লোহাগড়ায় সংখ্যালঘুদের চলাচলের রাস্তা অবরুদ্ধ করে রেখেছে একদল ভূমি দস্যু  সন্ত্রাসী  লোহাগড়ায় পুলিশের তান্ডব প্রতিবাদে  এলাকাবাসীর বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন  বাগেরহাটের মংলায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ১৫ কেজি গাঁজাসহ এক নারী মাদক কারবারি আটক নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জে হিলফুল ফুজুল যুব সংঘের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রিক বিতরণ খুলনার রূপসায় সালাম জুট মিলে আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ১৬ টি ইউনিট , নড়াইলে ধান ক্ষেতে প্রতিক্ষণ বিমান!  রাউজান থানায় সড়ক দূর্ঘটনায় বাঁশখালীর ২ হাফেজ ইমামের মৃ*ত্যু বাগেরহাটে অসহায় হত দরিদ্র মানুষের হাতে ঈদ উপহার তুলে দিলেন জনতার এমপি শেখ সারহান নাসের তন্ময় গণমাধ্যমকর্মীদের সংগঠন বাংলাদেশ রিপোর্টার্স ইউনিটি’র উদ্যোগে ইফতার ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পাবনায় ৪ টি দোকাান ডাকাতি অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ১৬ লাখ টাকার মালামাল লুট।

স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপলোডের সময় : মঙ্গলবার, ২৪ আগস্ট, ২০২১

পাবনায় ৪ টি দোকাান ডাকাতি অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ১৬ লাখ টাকার মালামাল লুট।

পাবনায় অস্ত্রের মুখে পাহারাদারদের জিম্মি করে বন্ধ থাকা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের তালা কেটে চারটি দোকানে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে।

সোমবার মধ্যরাতে পাবনা সদর উপজেলার মালঞ্চি ইউনিয়নের বোর্ড বাজার এলাকায় এই ডাকাতি ঘটনা ঘটে। ডাকাতদল ১৬ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্থদের।

এদিকে ডাকাতির ঘটনার খবর পেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খানসহ সদর থানা পুলিশের সদস্যরা।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলেন, সোমবার রাতে ব্যবসায়ীরা নিজেদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যাওয়ার পরে আনুমানিক রাত দেড়টার দিকে একদল ডাকাত ছোট একটি ট্রাক ও দুটি সিএনজি চালিত পরিবহন নিয়ে বাজারে প্রবেশ করে। এরপর বাজারের পাহারাদারকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে চারটি দোকানে মালামাল লুট করে। ঘটনার সময় স্থানীয়রা তাদের ধাওয়া দিলে তারা নিজেদের সাথে থাকা গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। ডাকাতদল সোহেল রানার একটি স্বর্ণের দোকান, আক্কাস আলীর টিভি ফ্রিজের দোকান, আল আমিনের মোবাইল ফোনের দোকান এবং জুয়েল হেসেনের টেলিকমের দোকানের মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী সোহেল রানা ও আক্কাস আলী জানান, এই ধরণের ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি। ডাকাতরা পূর্ব পরিকল্পা করে এই ডাকাতি করেছে। ডাকাতদল চারটি দোকানের নগদ অর্থসহ প্রায় ১৬ লাখ টাকার সম পরিমান মালামাল লুট করেছে বলে দাবি তাদের।

এ বিষয়ে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ সুপার স্যারসহ আমরা সেখানে গিয়েছিলাম। এই ডাকাতির ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের সাথে কথা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমাদের তদন্ত কাজ চলছে। সকল থানা এলাকাতে বিষয়টি জানিয়ে সতর্ক করা হয়েছে। গোয়েন্দা টিম মাঠে কাজ করছে। আশা করছি ঘটনার সাথে জড়িতদের খুব দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসা সম্ভব হবে। এ ঘটনায় পাবনা সদর থানায় মামলা দায়েরর প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..