শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০১:১১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
সাতক্ষীরা কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের নেতা-কর্মীদের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা। চবিতে চলছে হল সিলগালা। নড়াইলে পুকুরে গোসল করতে গিয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীর মৃত্যু  নড়াইলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৭   সিংড়ায় মাসব্যাপী চলনবিল বৃক্ষরোপণ উৎসবে বিনামূল্যে গাছের চারা বিতরণ পুরাতন সাতক্ষীরায় জমিজমা বিরোধে ৪জনকে পিটিয়ে আহত কোটা সংস্কারের দাবিতে বঙ্গভবনের স্মারকলিপি দিলেন শিক্ষার্থীরা যারা না জেনে সমালোচনা করেন, তারা মানসিক রোগী: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশু গৃহকর্মীকে  নির্যাতনের ঘটনায় দম্পতি গ্রেফতার। সাভারে চুরির অপবাদ দিয়ে শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক দুই

দুইকোটি টাকার সোনা তুলে দিতে গিয়ে শ্রীঘরে তিন ভন্ড কবিরাজ তথা কথিত জ্বীনের বাদশা

মোঃ ইমাম হোছাইন, হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
  • আপলোডের সময় : রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২

চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলায় ফুলচোঁয়া গ্রামে জ্বীনের বাদশা সহ তিন প্রতারক আটক। হাজীগঞ্জের 2নং বাকিলা ইউনিয়নের ফুলচোঁয়া গ্রামের ক্বারী সাহেবের বাড়ীর মোঃ ইমাম হোসেন (52) বান্দরবনে ব্যবসা করতেন। সেখানে তার পরিচয় হয় প্রতারক চক্রের দলনেতা তাফাজ্জলের সাথে। ইমাম হোসেন পেশায় একজন কাঠ মিস্ত্রি। বিভিন্ন সময়ে নানা প্রলোভনে পড়ে সর্বোহারা হয়েছেন ইমাম। সর্বোশেষে গত চারদিন আগে দুই লক্ষ টাকার চুক্তিতে দুই কোটি টাকার সোনার হাড়ি/বার তুলে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ফুলচোঁয়া গ্রামে আসে প্রতারক চক্র। ইমাম হোসেন তাদেরকে বিশ্বাস করে সোনা উত্তোলনের জন্য নগদ টাকা, লুঙ্গি, গামছা, আগরবাতি সহ নানাহ উপকরনের যোগান দেন
প্রতারক চক্র সেগুলো নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগের অপেক্ষায় ছিল। অবশেষে এলাকাবাসী ও সংবাদকর্মীদের তৎপরতায় পালায়ন করতে পারেনি। তাদেরকে আটক করে ভূক্তভোগী ইমাম হোসেন বাদী হয়ে হাজীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলায় তাদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে রবিবারে তাদেরকে চাঁদপুর জেলা জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। প্রতারক চক্রের সদস্যরা হল-১। মোঃ তাফাজ্জল মুন্সি (৩০), পিতা-দেলোয়ার মুন্সি, মাতা-আনোয়ারা বেগম, সাং বহরামপুর, আলী ডাক্তার বাড়ী, দশমিনা, পটুয়াখালী২, মোঃ আব্দুর রহিম (৩০), পিতা-মান্নান খান, মাতা-শাহনুর বেগম, সাং নওমালা, বাউফল, পটুয়াখালী, ৩, তানিয়া আক্তার (২৫), স্বামী-মৃত মানিক মিয়া, পিতা-মৃত গনি মিয়া, মাতা-খোদেজা বেগম, সাং-সোনাপুর, বাঞ্চারামপুর, ব্রাক্ষনবাড়ীয়া। এলাকাবাসী তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করেছেন।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..