বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৪:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
নতুন কারিকুলাম বাস্তবায়নে অনুপ্রেরণা ও অসহায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের স্কুল/স্কাউট পোশাক বিতরণ অনুষ্ঠান। খুলনায় আন্তর্জাতিক ও জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালিত সেতাবগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে যুবতীকে ধর্ষণ গোপালগঞ্জে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে আটক ১ কেএমপি’র সোনাডাঙ্গা মডেল থানা পুলিশের কর্তৃক ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত ০১টি মোটর সাইকেলসহ ০২ (দুই) জন ছিনতাইকারী গ্রেফতারঃ দেশের সব উপজেলার নির্বাহী অফিসারকে বদলির সিদ্ধান্ত:নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের আগে দেশের সব থানার ওসিদের বদলির নির্দেশ:নির্বাচন কমিশন মোংলা বন্দরের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন সালাহ উদ্দিন আহমেদ (সিআইপি) নৌকার মনোনয়ন পাওয়ায় এলাকায় জুড়ে চলছে আনন্দের উৎসব!  রামপালে দুর্বৃত্তের অগ্নি সংযোগ; বিএনপির আরও ৪ নেতা গ্রেফতার 

বন্যার অবস্থা খুব খারাপ লিখে তলিয়ে গেলেন বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্র।

মোঃআসিফুল ইসলাম সানি, বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রামঃ
  • আপলোডের সময় : মঙ্গলবার, ৮ আগস্ট, ২০২৩

সোমবার রাতে নিজের এলাকায় বন্যার অবস্থা খারাপ জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জুনায়েদুল ইসলাম জারিফ। ওই স্ট্যাটাসে দ্রুত সময়ে নিজ এলাকার স্কুল-কলেজের ভবনগুলো আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে খুলে দেয়ার অনুরোধ জানান তিনি। তবে ওই স্ট্যাটাসের সাড়ে তিন ঘণ্টা পর রাত ২টার দিকে পরিবার নিয়ে নিরাপদ আশ্রয়স্থলে যাওয়ার পথে পানিতে তলিয়ে যান তিনি। এর ১৩ ঘণ্টা পর তার মরদেহ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা।মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ এলাকায়। মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।২১ বছর বয়সী জারিফ চট্টগ্রামের বিসিজি ট্রাস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী। লোহাগাড়ার আমিরাবাদ এলাকায় বাবা-মায়ের সঙ্গে বসবাস করতেন। সোমবার রাত ২টার দিকে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পথে জনকল্যাণ নামক এলাকায় বন্যার পানিতে তলিয়ে যান তিনি।তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লোহাগাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘একজনের মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়েছি, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখনো বিস্তারিত জানা যায়নি।সোমবার রাত ১০টা ৩১ মিনিটে নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্টে জারিফ লেখেন, ‘অতিদ্রুত সময়ের ভেতর লোহাগাড়ার স্কুল/কলেজ ভবনগুলো আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে খুলে দেন বন্যার অবস্থা খুব খারাপ।এর দুদিন আগেও ফেসবুকে নিজের ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বর শেয়ার করে অতিবৃষ্টিতে যে কোনো প্রয়োজনে নিজ এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন তিনি।এদিকে সোমবার বিকেল ৫টার দিকে বন্যার পানিতে তলিয়ে এখনো নিখোঁজ রয়েছেন একই এলাকায় চট্টলা পাড়ার কৃষক ৬০ বছর বয়সী আসহাব মিয়া।স্থানীয়রা জানান, সোমবার বিকেল ৫টার দিকে স্থানীয় পদুয়া তেওয়ারিহাট বাজার থেকে ছেলেকে নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে দুজন বন্যার পানিতে তলিয়ে যান। ঘটনাস্থলের অদূরে ছেলেকে পাওয়া গেলেও নিখোঁজ থাকেন আসহাব মিয়া।আসহাব মিয়া নিখোঁজের বিষয়ে পরিদর্শক সাইফুল বলেন, ‘তিনি পানিতে তলিয়ে গতকাল থেকে নিখোঁজ। এখনো উদ্ধার করা যায়নি তাকে।পাহাড়ি ঢল ও অতিবৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা। এসব এলাকায় কয়েক লাখ মানুষ পানিবন্দি রয়েছে। এর
মধ্যে সাতকানিয়া উপজেলা প্রায় পুরোটাই তলিয়ে গেছে পানিতে। বন্যার কারণেচট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..