শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:০০ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
প্রাথমিক থেকে কলেজ পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাত দিনের ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। আজ ফেসবুকে ঘোষণা দিয়ে যা বললেন ড. বেনজীর আহমেদ প্রাণিসম্পদে ভরবো দেশ, গড়বো স্মার্ট বাংলাদেশ”  প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনী ২০২৪ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। লোহাগড়ার লাহুড়িয়া পুলিশের অভিযানে ১২ কেজি গাঁজা ও ১টি প্রাইভেটকারসহ ২ মাদক কারবারি গ্রেফতার। ঈদগাঁও ইউনিয়ন নির্বাচন: ৩ প্রার্থীর মধ্যে মাঠ পর্যায়ে কে এগিয়ে!  সুন্দরবনের ফাঁদ সহ হরিণ শিকারী আটক করেছে বন বিভাগ মধুখালীতে প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনী মেলা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত মধুখালীতে মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা  গলাচিপায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত বাঁশখালীতে জমির বিরুধ নিয়ে সংঘর্ষ উভয় পাক্ষের আহত ১০

কন্টেইনার নিচে প্রাইভেট কার, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলেন ৫ যাত্রী।

মোঃআসিফুল ইসলাম সানি, বিশেষ প্রতিনিধি,চট্টগ্রামঃ
  • আপলোডের সময় : শনিবার, ৫ আগস্ট, ২০২৩

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে নিয়ন্ত্রণ হারানো কন্টেইনার নিচে চাপা পড়েছে একটি প্রাইভেট কার। তবে অলৌকিকভাবে বেঁচে গেছেন প্রাইভেটকারে থাকা পাঁচ যাত্রী।

শনিবার (৫ আগস্ট) সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজ সংলগ্ন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের একটি টিমের যৌথ প্রচেষ্টায় তাদেরকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, সকাল সাড়ে দশটার দিকে ঢাকামুখী একটি প্রাইভেটকারকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাপা দেয় একই মুখী একটি কন্টেইনার। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে বার আউলিয়া হাইওয়ে পুলিশ ও কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উদ্ধার কার্যক্রম চালাতে থাকেন। প্রায় ৪৫ মিনিটের চেষ্টায় চাপা পড়া কন্টেইনার সরিয়ে প্রাইভেটকারে থাকা পাঁচ যাত্রীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

কুমিরা ফায়ার সার্ভিসে সিনিয়র স্টেশন অফিসার সুলতান মাহমুদ বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছাই। একটু পরেই হাইওয়ে পুলিশের একটি টিম এসে পৌঁছে। রেকার এবং ক্রেনের সহায়তায় কন্টেইনার আমরা সরাতে সক্ষম হই। এই ঘটনায় প্রাইভেট কারের চালক সামান্য আহত হলেও বাকিরা অক্ষত ছিল। পাঁচ যাত্রীর মধ্যে একটি ছোট বাচ্চাও ছিল। সবাইকে অক্ষত অবস্থায় জীবিত উদ্ধার করা এটা অলৌকিক ঘটনার মতো মনে হচ্ছে আমাদের কাছে। সকাল থেকে আমরা এখনো কিছু খাইনি। তবে তাদের জীবিত উদ্ধার করতে পেরে এখন কোন কষ্টকে কষ্ট মনে হচ্ছে না।

বার আউলিয়া হাইওয়ে পুলিশের এসআই আমির হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুততার সঙ্গে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করি। পরবর্তীতে ফৌজদারহাট পুলিশ ফাঁড়ির দুটি ক্রেনের সাহায্যে লরিটিকে উপর দিকে সরিয়ে প্রাইভেটকারটি বের করা হয়। যাত্রীরা অত্যন্ত সৌভাগ্যবান, দ্রুত সময়ের মধ্যে ঘটনাস্থলে ক্রেন পৌঁছে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করার কারণে তাদেরকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..