সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৯:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
নড়াইল সদরে দ্বিমুখী ও লোহাগড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে লড়াই হবে ত্রিমুখী বাগেরহাটে মোরেলগঞ্জে জীবনের ঝুৃঁকি নিয়ে ভাঙা কাঠের পুল দিয়ে পার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। চা শ্রমিক দিবস,মুল্লুকে চলো আন্দোলনের ১০৩ বছর। নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ ভিত্তিহীন – মাশরাফী কুকুরের দল তাকে একা পেয়ে কামড়ে ছিন্নভিন্ন করে ফেলে বাগেরহাটের শরণখোলায় গলায় ওড়না পেঁচিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীরির আত্মহত্যা সিংড়ায় ভোক্তা-অধিকারের অভিযানে তিন প্রতিষ্ঠান কে জরিমানা  সাতক্ষীরার তালায় ট্রাক উল্টে ২ শ্রমিক নিহত আহত ১১   বাগেরহাটের রামপালে লায়ন ড.শেখ ফরিদুল ইসলামের উদ্যোগে চোখের ছানি অপারেশন ও লেন্স সংযোজন ৫০০ রোগী বাছাই লোহাগড়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থী কে এম ফয়জুল হক রোমের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর ও পোষ্টার ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ 

মানিকগঞ্জে ধর্ষণের পর ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে দুই যুবক কারাগারে

স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপলোডের সময় : সোমবার, ১১ এপ্রিল, ২০২২

মানিকগঞ্জ
শিবালয় উপজেলায় এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেই ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার দুপুরে শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরজাহান লাবনী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তার দুই যুবক হলেন- শিবালয় উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের সামিউল ইসলাম ওরফে সামি (২২) ও ঘিওর উপজেলার শ্রীবাড়ী গ্রামের তাপস সরকার (১৯)।

পুলিশ এবং এজাহার সূত্রে জানা গেছে, শিবালয় উপজেলার একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ওই ছাত্রী গত ২ মার্চ বিকেলে বাড়ি থেকে খালার বাড়ি যাচ্ছিল। পথে শিবালয়ের উপজেলার টেপড়া এলাকায় পূর্ব পরিচিত সামিউলের সঙ্গে তার দেখা হয়। এ সময় খালার বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে সামিউল ওই ছাত্রীকে একটি রিকশায় চড়িয়ে শিবরামপুর এলাকায় নিয়ে যায়। এরপর সেখানে একটি একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে সামিউল ও তার সহযোগী তাপস। এ সময় ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করা হয়।

পরের দিন (৩ মার্চ) ভোরে তারা মেয়েটির মুঠোফোন ছিনিয়ে রেখে খালার বাড়ির উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দেয়। এ সময় ঘটনা কাউকে জানালে ধারণকৃত ভিডিও ফেসবুক ও ইউটিউবে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় তারা। এরপর বাড়িতে গিয়ে ওই ছাত্রী মাকে ধর্ষণের বিষয়টি জানায়। তবে লোকলজ্জার ভয়ে ঘটনাটি চেপে যায় ছাত্রীর পরিবার।

গতকাল রোববার ইউটিউবে এই ধর্ষণের ভিডিও চিত্র দেখতে পায় ছাত্রীর পরিবার। এর পরপরই ছাত্রীর পরিবার বিষয়টি শিবালয় থানার পুলিশকে জানায়। পরে রোববার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে বাড়ি থেকে সামিউল ও তাপসকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় আজ সোমবার সকালে ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা বাদী হয়ে ওই যুবককে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নুরজাহান লাবনী বলেন, আজ দুপুরে গ্রেপ্তারকৃত দুই যুবককে আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালতের বিচারক তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

দয়া করে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..